মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পল্লী দারিদ্র বিমোচন ফাউন্ডেশন,(পিডিবিএফ),বিরল, দিনাজপুর।

পটভূমিঃ পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশন (পিডিবিএফ) সৃষ্টির গোড়ায় ছিল RD2(আর পিপি), আরডি-১২ এবং পল্লী বিত্তহীন কর্মসূচী। ১৯৮৪ সাল থেকে বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ড কানাডিয়ান সিডার আর্থিক ও কারিগরী সহায়তায় এ প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন করে আসছিল। সরকারী সেক্টরে এগুলিই সর্বপ্রথম বিত্তহীন কল্যান প্রোগ্রাম, যা পরবর্তীতে ১৯৯৯ সালের ৭ নভেম্বর মাসে জাতীয় সংসদে গৃহীত ২৩নং আইনের মাধ্যমে পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশন (পিডিবিএফ) নাম প্রতিষ্ঠা করা হয়। পিডিবি এফ সরকার কর্তৃক আইনের মাধ্যমে একটি প্রতিষ্ঠিত সংবিধি বন্ধ প্রতিষ্ঠান।

উদ্দেশ্যঃপল্লীর দারিদ্র জনগোষ্ঠীর আর্থ সামাজিক উন্নয়ন এবং নারী পুরুষের সমতায়ন। এই উদ্দেশ্যকে সাফল্যের সাথে সম্পন্ন করার জন্য পিডিবিএফ নিম্ম লিখিত কর্মসূচী গুলো বাস্তবায়ন করছেঃ-

v        সংগঠন তৈরী। (সদস্যদের সমিতিতে অন্তর্ভূক্তির মাধ্যমে)

v        সঞ্চয় জমা ও ঋন প্রদানের মাধ্যমে অর্থনৈতিক উন্নয়ন।

v        শিক্ষা, স্বাস্থ্য, নাগরিক অধিকার, নারীর অধিকার ও আইন সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি করে সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন।

v        বিভিন্ন আয়বৃদ্ধিমূলক কর্মকান্ডে দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষন প্রদান। (বিশেষ করে কৃষি ভিত্তিক)

পরিচালনা পদ্ধতিঃ ১১(এগার) সদস্যের বোর্ড অব গভর্নর্স দ্বারা পিডিবিএফ পরিচালিত হয়। ব্যবস্থাপনা এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা। স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রালয়ের পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের মাননীয় সচিব পদাধিকার বলে বোর্ডের সভাপতি। বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক এর সহ-সভাপতি, পিডিবিএফ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক সদস্য সচিব এবং অর্থ মন্ত্রালয়ের যুগ্ন-সচিবের নীচে নন এমন পদমর্যাদার একজন কর্মকর্তা সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। পদাধিকার বলে উক্ত চারজন ছাড়াও অন্য সাতজন সদস্যের মধ্যে রযেছেন পিডিবিএফ এর সুফল ভোগীদের মধ্য থেকে চারজন সদস্য এবং প্রাইভেট সেক্টরের প্রতিনিধি হিসেবে রয়েছেন তিন জন সদস্য।

  • কী সেবা কীভাবে পাবেন
  • প্রদেয় সেবাসমুহের তালিকা
  • সিটিজেন চার্টার
  • সাধারণ তথ্য
  • সাংগঠনিক কাঠামো
  • কর্মকর্তাবৃন্দ
  • তথ্য প্রদানকারী কর্মকর্তা
  • কর্মচারীবৃন্দ
  • বিজ্ঞপ্তি
  • ডাউনলোড
  • আইন ও সার্কুলার
  • ফটোগ্যালারি
  • প্রকল্পসমূহ
  • যোগাযোগ

 

১। সেবা সমূহঃ

              (ক) সৌরবিদ্যুৎ ঋণদান।

              (খ) পশু পালন।

              (গ) শাক-সবজি চাষ।

              (ঘ) মাছ চাষ।

              (ঙ) নেতৃত্ব বিকাশ ও সামাজিক উন্নয়ন।  

              (চ) প্যারাটেক প্রশিক্ষণ।

সিটিজেন‘স চার্টার

(CITIZEN`S CHARTER)

ক্রমিক নং

প্রদেয় সেবা

সেবাগ্রহীতা

সেবাপ্রাপ্তির করণী

সেবা প্রদানকারীর করণী

কার্য সম্পদনের সময়সীমা

মন্তব্য

বিনামূল্যে বই বিতরণ

অভিভাবক/ শিক্ষার্থী

নিকটবর্তী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যথাসময়ে সন্তানকে বর্তি করতে হবে।

উপজেলা শিক্ষা অফিসার বিদ্যালয়ের চাহিদা ও প্রাপ্যতা অনুযায়ী নির্ধারিত সময়ে বই বিতরণ নিশ্চিত করবেন; বিতরণের হিসাব নির্দিষ্ট রেজিঃ অন্তর্ভূক্ত/সংরক্ষণ করবেন এবং এতদসংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার বরাবর প্রেরণ করবেন।

ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহ

 

এস.এম.সি ও পিটিএ গঠন/পূনর্গঠন

-

কেউ প্রার্থী হতে চাইলে তাঁকে সংশ্লিষ্ট স্কুলের প্রধান শিক্ষকের নিকট লিখিত আবেদন করতে হবে।

নির্দেশনা ও নীতিমালা মোতাবেক কমিটি গঠন করতে হবে।

কমিটির মেয়াদ শেষ হওয়ার তিনমাস পূর্বে উদ্যোগ গ্রহণ

 

উপবৃত্তির তালিকা প্রণয়ন

-

নিকটবর্তী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যথাসময়ে সন্তানকে বর্তি করতে হবে।

যথাযথ তালিকা তৈরী করে এসংক্রান্ত নীতিমালা অনুযায়ী উপবৃত্তি প্রদান করতে হবে।

প্রতি বছর মার্চ মাসে

 

বি.এড, এম.এড সহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে প্রশিক্ষণের অনুমতি প্রদান

শিক্ষক/শিক্ষিকা

৩১ মার্চ তারিখের মধ্যে সংশ্লিষ্ট উপজেলা শিক্ষা অফিস বরাবর আবেদন করতে হবে।

আবেদনের প্রেক্ষিতে বিধি মোতাবেক জরুরী ব্যবস্থা গ্রহণ এবং তা জেপ্রাশিঅ বরাবর প্রেরণ করতে হবে।

১৫ এপ্রিলের মধ্যে

 

টাইম স্কেল এর আপত্তি নিষ্পত্তি

শিক্ষক/কর্মচারী

যথাসময়ে আবেদন করতে হবে। আবেদনের সঙ্গে বিগত ৩ বছরের এসিআর ও সার্ভিস বহি (হালনাগাদ) জমা দিতে হবে।

ডিপিসি (Eepartmental Promotion Commitee) এর সুপারিশ সহ জেপ্রাশিঅ এর নিকট প্রেরণ এবং আবেদনকারীকে তা অবহিত করতে হবে।

৩০ কার্য দিবসের মধ্যে

 

পদোন্নতি প্রদান

প্রধান শিক্ষক

করণীয় নাই

ডিপিসি এর সুপারিশ সহ জেপ্রাশিঅ এর নিকট প্রেরণ এবং আবেদনকারীকে তা অবহিত করতে হবে। 

পদ শুন্য হওয়ার ৯০ কার্যদিবসের মধ্যে

 

দক্ষতাসীমার আবেদন নিষ্পত্তি

শিক্ষক/কর্মচারী

যথাসময়ে আবেদন করতে হবে। আবেদনের সঙ্গে বিগত ৩ বছরের এসিআর ও সার্ভিস বহি (হালনাগাদ) জমা দিতে হবে।

জেপ্রাশিঅ-এর বরাবর আবেদন অগ্রায়ন এবং আবেদনকারীকে তা অবহিত করতে হবে।

০৭ কার্য দিবসের মধ্যে

 

এল.পি.আর/লাম্পগ্রান্ড সংক্রান্ত আবেদন নিষ্পত্তি

শিক্ষক/কর্মচারী

নিম্নোক্ত কাগজপত্রসহ আবেদন দাখিল করতে হবে

১।  এস.এস.সি সনদপত্র

২। এলপিসি

৩। প্রথম নিয়োগপত্র

৪। চাকুরীর খতিয়ান বহি

৫। ছুটি প্রাপ্তির সনদ

উপজেলা শিক্ষা অফিস সংশ্লিষ্ট আবেদন জেপ্রাশিঅ-এ প্রেরণ এবং আবেদনকারীকে অবহিত করবেন।

দাখিল পরবর্তী ৭ কর্মদিবসের মধ্যে

 

 

 

 

(২)

ক্রমিক নং

প্রদেয় সেবা

সেবাগ্রহীতা

সেবাপ্রাপ্তির করণী

সেবা প্রদানকারীর করণী

কার্য সম্পদনের সময়সীমা

মন্তব্য

পেনশন কেস/আবেদনের নিস্পত্তি

শিক্ষক/কর্মচারী

পেনশন

নিম্নোক্ত কাগজপত্র দাখিল করতে হবেঃ

(১) নির্ধারিত ফরমে পেনশন প্রাপ্তি আবেদন পত্র (৩ কপি), (২) সকল শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্র (৩) চাকুরীর পূর্ণ বিবরণী (৪) নিয়োগপত্র (৫) পদোন্নতি পত্র (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে) (৬) উন্নয়ন খাতে চাকুরী হয়ে থাকলে রাজস্ব খাতে স্থানান্তরের সকল আদেশ কপি (৭) চাকুরীর খতিয়ান বহি (৮) পাসপোর্ট আকারের ৬ কপি ছবি (৯) নাগরিকত্ব সনদপত্র (১০) না-দাবী পত্র (১১) শেষ বেতন প্রত্যয়ন পত্র (এলপিসি) (১২) হাতের পাঁচ আঙ্গুলের ছাপসম্বলিত প্রমাণপত্র (১৩) নমুনা স্বাক্ষর (১৪) ব্যাংক হিসাব নম্বর (১৫) চাকুরী স্থায়ী করণ সংক্রান্ত আদেশ (১৬) উত্তরাধিকার/ওয়ারিশন নির্বাচনের সনদ (১৭) অডিট আপত্তি বা বিভাগীয় মামলা নাই মর্মে সুস্পষ্ট লিখিত সনদ (১৮) অবসর প্রস্ত্ততি ছুটি জনিত ছুটি (এলপিআর)-এর আদেশ কপি

পারিবারিক পেনশন

নিম্নোক্ত কাগজপত্র দাখিল করতে হবেঃ

(1)     নির্ধারিত ফরমে পেনশন প্রাপ্তি আবেদন পত্র (৩ কপি), (২) মৃত্যু সংক্রান্ত সনদ (৩) নিয়োগপত্র (৪) পদোন্নতি পত্র (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে) (৫) সকল শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্র (৬) উন্নয়ন খাতে চাকুরী হয়ে থাকলে রাজস্ব খাতে স্থানান্তরের সকল আদেশ কপি (৭) চাকুরীর খতিয়ান বহি (৮) চাকুরীর পূর্ণ বিবরণী (৯) নাগরিকত্ব সনদপত্র (১০) উত্তরাধিকার/ওয়ারিশ সনদ (১১) মৃত্যুর দিন পর্যন্ত  বেতন প্রাপ্তির সনদ (১২) পাসপোর্ট আকারের ৬ কপি ছবি (১৩) নমুনা স্বাক্ষর (১৪) উত্তরাধিকারী/ওয়ারিশগণের ক্ষমতাপত্র (১৫) বিধবা হলে পুনর্বিবাহ না করার সনদ (১৬) না-দাবী পত্র (১৭) শেষ বেতন প্রত্যয়ন পত্র (এলপিসি) (১৮) ব্যাংকের হিসাব নম্বর

আবেদন প্রাপ্তির ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে সকল কাগজপত্র যাচাই পূর্বক জেপ্রাশিঅ বরাবরে প্রেরণ এবং সংশ্লিষ্ট আবেদনকারীকে তা অবহিত করতে হবে।

দাখিলে ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে

 

১০

জিপিএফ থেকে ঋণ গ্রহণ সংক্রান্ত আবেদন নিষ্পত্তি

কর্মকর্তা/ কর্মচারী ও শিক্ষক/ শিক্ষিকা

নির্ধারিত ফরমে হাল নাগাদ Account Slip  সহ আবেদন করতে হবে।

৬নং কলামে বর্ণিত সময়ের মধ্যে জেপ্রাশিঅ বরাবরে প্রেরণ এবং সংশ্লিষ্ট আবেদনকারীকে তা অবহিত করতে হবে।

৭ কর্মদিবসের মধ্যে

 

১১

জিপিএফ থেকে চুড়ান্ত উত্তোলন সংক্রান্ত আবেদন নিষ্পত্তি

কর্মকর্তা/ কর্মচারী ও শিক্ষক/ শিক্ষিকা

নিম্নোক্ত কাগজপত্র সহ আবেদন দাখিল করতে হবেঃ

(১) ৬৬৩নং অডিট ম্যানুয়াল ফরম (অফিস প্রধান কর্তৃক প্রতিস্বাক্ষরিত) (২) সংশ্লিষ্ট হিসাব রক্ষণ অফিসার কর্তৃক কর্তৃত্ব/Authority প্রদান সংক্রান্ত সনদ (৩) এলপিআর মঞ্জুরীর আদেশ (৪) মৃতব্যক্তির ক্ষেত্রে মুত্যুসংক্রান্ত সনদ (৫) প্রতিনিধি/Nominee সনদ (৬)বিধবা হলে পুনর্বিবাহ না করার অঙ্গীকারনামা

-

৭ কর্মদিবসের মধ্যে

 

 

 

 

 

 

(৩)

ক্রমিক নং

প্রদেয় সেবা

সেবাগ্রহীতা

সেবাপ্রাপ্তির করণী

সেবা প্রদানকারীর করণী

কার্য সম্পদনের সময়সীমা

মন্তব্য

১২

গৃহ নির্মান ঋণ ও অনুরূপ আবেদন নিষ্পত্তি

কর্মকর্তা/ কর্মচারী ও শিক্ষক/ শিক্ষিকা

নিম্নোক্ত কাগজপত্র সহ আবেদন দাখিল করতে হবেঃ

(১) নিধারিত ফরমে আবেদন পত্র (২) বায়নামাপত্র (৩) ইতোপূর্বে ঋণ গ্রহণ করেন নাই মর্মে অঙ্গিকার নামা (৪) রাজউক/বা অনুরুপ /সংশ্লিষ্ট/উপযুক্ত (যেক্ষেত্রে যেটি প্রযোজ্য) কর্তৃপক্ষ কর্তৃক নির্ধারিত ফরমে প্রত্যয়ন পত্র (৫) সরকারী কৌসুলি/উকিল এর মতামত (৬) নামজারি/জমাখারিজ এর খতিয়ানের কপি (৭) ভূমি উন্নয়ন কর/খাজনা পরিশোধের দাখিলা/রশিদ

৬নং কলামে বর্ণিত সময়ের মধ্যে জেপ্রাশিঅ বরাবরে প্রেরণ এবং সংশ্লিষ্ট আবেদনকারীকে তা অবহিত করতে হবে।

১০ কর্মদিবসের মধ্যে

 

১৩

পাসপোর্ট করনের অনুমতিদানের আবেদন নিষ্পত্তি

কর্মকর্তা/ কর্মচারী ও শিক্ষক/ শিক্ষিকা

নির্ধারিত ফরম পূরণ করে উশিঅ -এর দপ্তরে আবেদনপত্র দাখিল করতে হবে

৬নং কলামে বর্ণিত সময়ের মধ্যে জেপ্রাশিঅ বরাবরে প্রেরণ এবং সংশ্লিষ্ট আবেদনকারীকে তা অবহিত করতে হবে।

৫ কর্মদিবসের মধ্যে

 

১৪

বিদেশ ভ্রমন/গমন সংক্রান্ত আবেদন নিষ্পত্তি

কর্মকর্তা/ কর্মচারী ও শিক্ষক/ শিক্ষিকা

প্রযোজ্য ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট ফরম ও অন্যান্য ক্ষেত্রে সাদা কাগজে উশিঅ এর দপ্তরে লিখিত আবেদন করতে হবে

৬নং কলামে বর্ণিত সময়ের মধ্যে জেপ্রাশিঅ বরাবরে প্রেরণ এবং সংশ্লিষ্ট আবেদনকারীকে তা অবহিত করতে হবে।

৭ কর্মদিবসের মধ্যে

 

১৫

উচ্চতর পরীক্ষায় অংশগ্রহণের অনুমতি প্রদান

-

লিখিত আবেদন করতে হবে

৬নং কলামে বর্ণিত সময়ের মধ্যে জেপ্রাশিঅ বরাবরে প্রেরণ এবং সংশ্লিষ্ট আবেদনকারীকে তা অবহিত করতে হবে।

৩ কর্মদিবসের মধ্যে

 

১৬

নৈমিত্তক ছুটি ব্যতীত বিভিন্ন প্রকার ছুটি সংক্রান্ত আবেদন নিষ্পত্তি

কর্মকর্তা/ কর্মচারী ও শিক্ষক/ শিক্ষিকা

প্রযোজ্য ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট ফরম ও অন্যান্য ক্ষেত্রে সাদা কাগজে উশিঅ এর দপ্তরে লিখিত আবেদন করতে হবে

৬নং কলামে বর্ণিত সময়ের মধ্যে জেপ্রাশিঅ বরাবরে প্রেরণ এবং সংশ্লিষ্ট আবেদনকারীকে তা অবহিত করতে হবে।

৫ কর্মদিবসের মধ্যে

 

১৭

শিক্ষকদের বদলীর আবেদন নিষ্পত্তি (উপজেলার মধ্যে)

শিক্ষক/শিক্ষিকা

উশিঅ বরাবরে এসংক্রান্ত নীতিমালা অনুসারে আবেদন করতে হবে

প্রযোজ্য ক্ষেত্রে বদলীর ব্যবস্থা গ্রহণ; কিন্তু বিদ্যমান নীতিমালা অনুসারে তা সম্ভব না হলে সেটি আবেদনকারীকে অবহিত করতে হবে।

৫ কর্মদিবসের মধ্যে

 

১৮

শিক্ষকদের বদলীর আবেদন নিষ্পত্তি (উপজেলার বাহিরে)

শিক্ষক/শিক্ষিকা

নিম্নোক্ত কাগজপত্র সহ আবেদন দাখিল করতে হবেঃ

(১) চাকুরীর খতিয়ান বহির ১ম পাঁচ পৃষ্ঠার সত্যায়িত ফটোকপি (২) নিয়োগপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি (৩) প্রথম যোগদানের প্রমান/কপি (৪) নিকাহনামা (মহিলাদের ক্ষেত্রে)-এর প্রমান।

৬নং কলামে বর্ণিত সময়ের মধ্যে জেপ্রাশিঅ বরাবরে প্রস্তাব (পক্ষে/বিপক্ষে) প্রেরণ এবং সংশ্লিষ্ট আবেদনকারীকে তা অবহিত করতে হবে।

৭ কর্মদিবসের মধ্যে

 

গুরুত্ব পূর্ণ প্রকল্প সমূহঃ

ক্ষুদ্রঋন কার্যক্রমঃ ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে পিডিবিএফ গ্রামীন দরিদ্র ও অসুবিধাগস্থ জনগোষ্ঠীকে আর্থিকভাবে স্বয়ম্ভর উৎপাদনমূখী কার্যক্রমে অংশগ্রহন, কমসংস্থান সৃষ্টির জন্য এ পর্যন্ত বিরল কার্যালয়ে মোট ক্রমপুঞ্জিত ২৫ কোটি টাকা ঋন বিতরণ করতে সক্ষম হয়েছে। বিরল উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে প্রায় ৩০০০ জন সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীকে সংগঠিত করে স্বল্প সুদে ও সহজ শর্তে ঋণ বিতরণ কার্যক্রম পরিচালনা করছে। এ কার্যক্রমের ফলে গ্রামীন জনগোষ্ঠীর আয়বৃদ্ধিমূলক কর্মকান্ড যেমন- গাভী পালন, মৎস চাষ, শাক-সবজি চাষ, নার্সারী, মুরগী পালন ইত্যাদির মাধ্যমে বিভিন্ন আত্নকর্ম সংস্থানের সুযোগ  সৃষ্টি হয়েছে এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের আর্থিক স্বচ্ছলতা বৃদ্ধি পেয়েছে যা জাতীয় উৎপাদন বৃদ্ধিতে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখতে সক্ষম হয়েছে।

ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা ঋন কার্যক্রম (SELP)tদরিদ্র জনগোষ্ঠীর মধ্যে অনেক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, ব্যবসা সম্পসারণের জন্য যে পরিমান অর্থ প্রয়োজন তা সংগ্রহ করতে সক্ষম হন না। ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের যে পরিমান অর্থের প্রয়োজন তা পিডিবিএফ- এর ক্ষুদ্র ঋনের আওতার বাইরে চলে যায়। এ সকল উদ্যেক্তার জন্য ব্যাংক ঋন গ্রহন জটিল প্রক্রিয়া বিধায় তাঁরা অনেক সময় ব্যাংক থেকে ঋন গ্রহন করতে আগ্রহী হন না। পিডিবিএফ যেহেতু একটি সংবিধিবদ্ধ প্রতিষ্ঠান, তাই এই সব ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী এবং উদ্যোক্তাদের সহজ প্রক্রিয়ায় বিভিন্ন ধরনের ঋন সুবিধা প্রদান সহ অন্যান্য কারিগরী সুবিধা প্রদানের মাধ্যমে অধিক আয় এবং কর্ম-সংস্থান সৃষ্টির উদ্দেশ্যে কাজ করে যাচ্ছে। বিগত ২০১০-২০১১ অর্থ বছরে PDBFবিরল উপজেলার ৮১ জন উদ্যোক্তার মধ্যে প্রায় ৮০লক্ষ টাকা ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা ঋন বিতরন করা সম্ভব হযেছে। বর্তমান অর্থ বছরে ১কোটি টাকার অধিক ঋন বিতরনের পরিকল্পনা রযেছে।

 সঞ্চয় কার্যক্রমঃ পিডিবিএফ- এর সুফলভোগীরা ঋন কার্যক্রমের পাশাপাশি সঞ্চয় কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র সঞ্চয় ব্যাংকে জমা করা সম্ভব নয় পিডিবিএফ- এর কর্মীগণ দল গঠনের মাধ্যমে এই সব ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র সঞ্চয় সমিতির সাপ্তাহিক সভায় সংগ্রহ করে সুফল ভোগীদের পুঁজি গঠনে সহায়তা করেন। সুফলভোগীগন তাদের সঞ্চিত সঞ্চয় থেকে শারীরিক অসুস্থতা, রোগ ব্যাধি, প্রাকৃতিক দুর্যোগ, ছেলে-মেয়ের লেখাপড়া ইত্যাদি কারনে যে-কোন সময় সঞ্চয়ের টাকা উত্তোলন করতে পারেন। পিডিবিএফ এ সাধারন সঞ্চয়, সোনালী সঞ্চয়, মেয়াদী সঞ্চয় নামে ৩টি ভিন্ন ভিন্ন সঞ্চয় স্কীম বাস্তবায়ন করছে।

সৌরশক্তি প্রকল্পঃ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বিদ্যুৎ সুবিধা বঞ্চিত অনগ্রসর দারিদ্র্যপ্রবন এলাকায় বিদ্যুৎ সুবিধা পৌঁছানোর লক্ষ্যে বিগত ২০০৫-২০০৬ সালে পিডিবিএফ এ সৌরশক্তি প্রকল্পের কার্যক্রম শুরু করা হয়। প্রাথমিকভাবে স্বল্প পরিসরে মাত্র ১২টি উপজেলায় কার্যক্রম বিস্তৃত ছিল।

বর্তমান সরকারের ভিশন ২০২১ অনুযায়ী সকলের ’’জন্য বিদ্যুৎ’’ এইশ্লোগান বাস্তবায়নের লক্ষ্যে পিডিবিএফ বিগত বছরে ১২টি জেলার ৭০ উপজেলায় ৮,৫০০টি সালার হোম সিষ্টেম প্রতিস্থাপনের মাধ্যমে প্রায় ৪২,৫০০ জনগোষ্ঠীকে প্রত্যক্ষভাবে দৈনিক ২০৫০kwবিদ্যুৎ সুবিধা প্রদান করছে। এর ফলে সুবিধা বঞ্চিত দরিদ্র জনগোষ্ঠীর বিদ্যুৎ ঘাটতি পূরণ ও কর্মসংস্থান সৃষ্ঠিতে পিডিবিএফ এর সৌরশক্তি প্রকল্পের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে।

 

 

                মোঃ আব্দুল বাসেদ

উর্ধ্বতন উপজেলা দারিদ্র বিমোচন কর্মকর্তা      বিরল, দিনাজপুর

ছবি নাম মোবাইল
মোঃ আব্দুল বাসেদ ০১৭১৮৮৯৯৪৫০

গুরুত্ব পূর্ণ প্রকল্প সমূহঃ

ক্ষুদ্রঋন কার্যক্রমঃ ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে পিডিবিএফ গ্রামীন দরিদ্র ও অসুবিধাগস্থ জনগোষ্ঠীকে আর্থিকভাবে স্বয়ম্ভর উৎপাদনমূখী কার্যক্রমে অংশগ্রহন, কমসংস্থান সৃষ্টির জন্য এ পর্যন্ত বিরল কার্যালয়ে মোট ক্রমপুঞ্জিত ২৫ কোটি টাকা ঋন বিতরণ করতে সক্ষম হয়েছে। বিরল উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে প্রায় ৩০০০ জন সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীকে সংগঠিত করে স্বল্প সুদে ও সহজ শর্তে ঋণ বিতরণ কার্যক্রম পরিচালনা করছে। এ কার্যক্রমের ফলে গ্রামীন জনগোষ্ঠীর আয়বৃদ্ধিমূলক কর্মকান্ড যেমন- গাভী পালন, মৎস চাষ, শাক-সবজি চাষ, নার্সারী, মুরগী পালন ইত্যাদির মাধ্যমে বিভিন্ন আত্নকর্ম সংস্থানের সুযোগ  সৃষ্টি হয়েছে এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের আর্থিক স্বচ্ছলতা বৃদ্ধি পেয়েছে যা জাতীয় উৎপাদন বৃদ্ধিতে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখতে সক্ষম হয়েছে।

ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা ঋন কার্যক্রম (SELP)tদরিদ্র জনগোষ্ঠীর মধ্যে অনেক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, ব্যবসা সম্পসারণের জন্য যে পরিমান অর্থ প্রয়োজন তা সংগ্রহ করতে সক্ষম হন না। ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের যে পরিমান অর্থের প্রয়োজন তা পিডিবিএফ- এর ক্ষুদ্র ঋনের আওতার বাইরে চলে যায়। এ সকল উদ্যেক্তার জন্য ব্যাংক ঋন গ্রহন জটিল প্রক্রিয়া বিধায় তাঁরা অনেক সময় ব্যাংক থেকে ঋন গ্রহন করতে আগ্রহী হন না। পিডিবিএফ যেহেতু একটি সংবিধিবদ্ধ প্রতিষ্ঠান, তাই এই সব ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী এবং উদ্যোক্তাদের সহজ প্রক্রিয়ায় বিভিন্ন ধরনের ঋন সুবিধা প্রদান সহ অন্যান্য কারিগরী সুবিধা প্রদানের মাধ্যমে অধিক আয় এবং কর্ম-সংস্থান সৃষ্টির উদ্দেশ্যে কাজ করে যাচ্ছে। বিগত ২০১০-২০১১ অর্থ বছরে PDBFবিরল উপজেলার ৮১ জন উদ্যোক্তার মধ্যে প্রায় ৮০লক্ষ টাকা ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা ঋন বিতরন করা সম্ভব হযেছে। বর্তমান অর্থ বছরে ১কোটি টাকার অধিক ঋন বিতরনের পরিকল্পনা রযেছে।

 সঞ্চয় কার্যক্রমঃ পিডিবিএফ- এর সুফলভোগীরা ঋন কার্যক্রমের পাশাপাশি সঞ্চয় কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র সঞ্চয় ব্যাংকে জমা করা সম্ভব নয় পিডিবিএফ- এর কর্মীগণ দল গঠনের মাধ্যমে এই সব ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র সঞ্চয় সমিতির সাপ্তাহিক সভায় সংগ্রহ করে সুফল ভোগীদের পুঁজি গঠনে সহায়তা করেন। সুফলভোগীগন তাদের সঞ্চিত সঞ্চয় থেকে শারীরিক অসুস্থতা, রোগ ব্যাধি, প্রাকৃতিক দুর্যোগ, ছেলে-মেয়ের লেখাপড়া ইত্যাদি কারনে যে-কোন সময় সঞ্চয়ের টাকা উত্তোলন করতে পারেন। পিডিবিএফ এ সাধারন সঞ্চয়, সোনালী সঞ্চয়, মেয়াদী সঞ্চয় নামে ৩টি ভিন্ন ভিন্ন সঞ্চয় স্কীম বাস্তবায়ন করছে।

সৌরশক্তি প্রকল্পঃ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বিদ্যুৎ সুবিধা বঞ্চিত অনগ্রসর দারিদ্র্যপ্রবন এলাকায় বিদ্যুৎ সুবিধা পৌঁছানোর লক্ষ্যে বিগত ২০০৫-২০০৬ সালে পিডিবিএফ এ সৌরশক্তি প্রকল্পের কার্যক্রম শুরু করা হয়। প্রাথমিকভাবে স্বল্প পরিসরে মাত্র ১২টি উপজেলায় কার্যক্রম বিস্তৃত ছিল।

বর্তমান সরকারের ভিশন ২০২১ অনুযায়ী সকলের ’’জন্য বিদ্যুৎ’’ এইশ্লোগান বাস্তবায়নের লক্ষ্যে পিডিবিএফ বিগত বছরে ১২টি জেলার ৭০ উপজেলায় ৮,৫০০টি সালার হোম সিষ্টেম প্রতিস্থাপনের মাধ্যমে প্রায় ৪২,৫০০ জনগোষ্ঠীকে প্রত্যক্ষভাবে দৈনিক ২০৫০kwবিদ্যুৎ সুবিধা প্রদান করছে। এর ফলে সুবিধা বঞ্চিত দরিদ্র জনগোষ্ঠীর বিদ্যুৎ ঘাটতি পূরণ ও কর্মসংস্থান সৃষ্ঠিতে পিডিবিএফ এর সৌরশক্তি প্রকল্পের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে।

 

 

                মোঃ আব্দুল বাসেদ

উর্ধ্বতন উপজেলা দারিদ্র বিমোচন কর্মকর্তা      বিরল, দিনাজপুর

দিনাজপুর জেলা হতে বিরল উপজেলার দুরত্ব প্রায় ১০ কিলোমিটার। দিনাজপুর হতে ট্রেন,বাস, অটোরিক্সা, টেম্পু, রিক্সা কিংবা ভেন যোগেযাতায়াত করা যায়। বিরল বাস বা অটোরিক্সা স্টেন্ড হতে দক্ষিনে প্রায় কোয়াটার কিলোমিটার গেলে বিরল উপজেলা পরিষদ। বিরল উপজেলা পরিষদ হতে ২০০ গজ উত্তর পশ্চিমে  পল্লী দারিদ্র বিমোচন ফাউন্ডেশন অফিস অবস্থিত।

 

 

টেলিফোন নং ০৫৩২৪-৫৬১০০